সব কিছু
facebook lakshmipur24.com
লক্ষ্মীপুর সোমবার , ৫ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
রামগঞ্জে আশ্রয়ন প্রকল্পের বহু ঘরে থাকছেন না উপকারভোগীরা

রামগঞ্জে আশ্রয়ন প্রকল্পের বহু ঘরে থাকছেন না উপকারভোগীরা

রামগঞ্জে আশ্রয়ন প্রকল্পের বহু ঘরে থাকছেন না উপকারভোগীরা

রহমত উল্যাহ পাটোয়ারী, রামগঞ্জ : রামগঞ্জে মুজিবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার উপহার ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য আশ্রয়ন প্রকল্পের বহু ঘরে থাকছেন না উপকারভোগীরা। শুধু কোন অফিসার পরিদর্শনে আসলে সবাই হাজির থাকেন। অনেকে আত্মীয় স্বজনকে থাকতে দিয়েছেন, কেউ আবার ভাড়াও দিয়েছেন। অনেকে স্বামী,স্ত্রী,ছেলেমেয়ের নামে দুই তিনটি করে ঘর বরাদ্ধ নিয়েছেন। এ সব অভিযোগ করেন বর্তমানে আশ্রয়ন প্রকল্পে বসবাসকারী উপকারভোগীরা। তবে জনপ্রতিনিধিসহ রজনীতিবিদরা মনে করেন, ঠিকমত যাচাই বাচাই করে প্রকৃত ভুমিহীন ও গৃহহীনদেরকে ঘর বরাদ্ধ দেওয়া হয়নি। এ জন্য তারা থাকে না।
সরেজমিনে রবিবার (১ আগষ্ট) চন্ডিপুর গনেসের বাড়ি আবাসন প্রকল্প গিয়ে দেখা যায়, বরাদ্ধকৃত ২৮টি পরিবারের মধ্যে ৭টি পরিবার বসবাস করছেন। এ সময় উপকারভোগী মানছুরা বেগম, অষ্টমী রানী দাস, রহিমা বেগম, স্বপ্না বেগম উপকারভোগী রহিমের স্ত্রী নাজমা আক্তার, রতন দাসের স্ত্রী স্বর্নফা দাস, যোগল চন্দ্র নমর স্ত্রী আলো নম বলেন, আমরা ৭ পরিবার ছাড়া আশ্রয়ন আর কেউ থাকছে না, সবাই থাকলে ভাল লাগতো। এ মধ্যে উপকারভোগী মনির হোসেন তার বরাদ্ধকৃত ঘরটি ফরিদগঞ্জ উপজেলার একজনের নিকট ভাড়া দিয়েছেন।
ভাদুর ইউনিয়নের রাজারামপুর আশ্রয়ন প্রকল্পের বসবাসকারী উপকারভোগী ফিরোজা বেগম, জান্নাতুল ফেরদাউস,নাছিমা আক্তার বলেন, তারা ৬টি পরিবার নিয়মিত বসবাস করেন। অন্য ৮টি পরিবার মাঝে মধ্যে এসে তাদের ঘর গুলি দেখে যান। এ আশ্রয়নে ফিরোজা বেগম(৭০) নিজে একটি ঘর ও তার ছেলে বাবুল হোসেনের নামে একটি ঘর বরাদ্ধ পেয়েছেন। কিন্তু বাবুল হোসেন থাকেন পৈতপুর গ্রামে তার পৈত্রিক বাড়িতে।
লামচর আবাসন প্রকল্পে ৩৭টি পরিবারের মধ্যে ১৮টি পরিবার বসবাস করেন। এ মধ্যে পুকুরের পূর্বপাশের ব্লকে ১২টি ঘরে বরাদ্ধকৃত একজন উপকারভোগীও থাকে না। বাকী ২টি ব্লকে ১৮টি পরিবার বসবাস করেন। হারুন মিয়া নিজে ও স্ত্রীর ২টা ও রেহানা আক্তার ও তার স্বামীর নামে ২টা, ফুল বানু স্বামী,ছেলে,মেয়ের ৩টা বরাদ্ধ পেয়েছেন। জরিনা বেগমের বরাদ্ধকৃত ঘরে থাকেন সেলিম হোসেন নামে একজন শ্রমিক। সেলিম হোসেন বলেন, তার কোন জায়গা সম্পদ না থাকায় এবং ঘর বরাদ্ধ না পাওয়ায় সে এখানে থাকেন। এ আশ্রয়ন প্রকল্পে বসবাসকারী উপকারকার ভোগী ফাহিমা আক্তার মুন্নি, রেহানা আক্তার,লম্বা হারুনসহ অনেকে বলেন, যারা পাওয়ার উপযুক্ত তাদেরকে ঘর বরাদ্ধ না দিয়ে দুরের এলাকার লোকজনকে ঘর বরাদ্ধ দিয়েছে। তারা শুধু অফিসাররা আসার খবর পেলে আসেন। আমরা তাদেরকে ভালোভাবে চিনি না।
কাউনিয়া আশ্রয়ন প্রকল্পের বাসিন্দা রশিদ বলেন, এক এলাকার লোককে অন্য এলাকায় ঘর বরাদ্ধ দিয়েছেন। এ জন্য তারা ঠিকমত থাকে না। এ ভাবে দেখা যায় প্রতিটি আশ্রয়নের প্রায় ৬০ভাগ উপকারভোগী থাকছেন না।
চন্ডিপুর ইউপি চেয়ারম্যান শামছুল ইসলাম সুমন বলেন, ঘর পেয়েও সবাই থাকছে না। এ ব্যাপারটি আমিও জানি এবং তাদের সাথে কয়েকবার যোগাযোগের চেষ্টাও করেছি। সমস্যা হল,এক বছর আগে যখন তালিকা করা হয়েছে,তখন হয়ত মানুষ ঠিকমত যানতো না এবং যাচাই বাচাইও হয়নি। বর্তমানে আমরা যে তালিকা করছি,এখানে প্রচুর লোক আবেদন করছেন, আমি সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি যেন প্রকৃত গৃহহীনরা ঘর পায়। এ ব্যাপারটি আমি উপজেলা প্রশাসনকেও জানিয়েছি।
রামগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আ ক ম রুহুল আমিন বলেন, এটি প্রধানমন্ত্রীর অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ন একটি প্রকল্প, এ প্রকল্পের ঘরগুলি কারা তৈরী করছে, কাদেরকে বরাদ্ধ দিয়েছে এ ব্যাপারে আমরা কিছুই জানি না। তবে অনেকে ঘর না পেয়ে এবং নানা সমস্যার কথা আমাদের কাছে বলে আমরা শুনি। ইউএনও,এসিল্যান্ড ও চেয়ারম্যানরা এ ব্যাপারে ভাল জানে।
রামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে হাবীবা মীরা জানান, যারা ঘর বরাদ্ধ পেয়েছেন,কিন্তু থাকছে না, তাদের তথ্য নিয়ে তালিকা প্রণয়ন করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
উপজেলা নির্বাহী অফিস সূত্রে জানান যায়, মুজিব বর্ষ উপলক্ষে ১ম ও ২য় পর্যায়ে এবং ৩য় পর্যায়ের ১ম ধাপে স্বপ্নের ঠিকানা নামে ২০ জুন ২০২১ থেকে ২৬ এপ্রিল ২০২২ তারিখ পর্যন্ত পর্যায়ক্রমে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে ১৪৯টি ঘর বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে লামচর ইউনিয়নে লামচর আশ্রয়ন প্রকল্পে ৩৭টি, ইছাপুর ইউনিয়নের কাউনিয়া আশ্রয়ন প্রকল্পে ৩৩টি,ভাদুর ইউনিয়নের রাজারামপুর আশ্রয়ন প্রকল্পে ১৪টি, কেথুড়ী আশ্রয়ন প্রকল্পে ৬টি ,চন্ডিপুর ইউনিয়নের চন্ডিপুর গনেশ বাড়ি আশ্্রয়ন প্রকল্পে ২৮টি, ফতেহপুর আশ্রয়ন ৩টি, সুরেরবাঘ আশ্রয়ন আশ্রয়ন প্রকল্পে ১০টি,কোচের বাড়ি আশ্রয়নে ৪টি,নোঁয়াগাও ইউনিয়নের পূর্ব নোঁয়াগাও মাদ্রসার সংলগ্ন আশ্্রয়ন প্রকল্পে ১৪টি ।

রায়পুর সংবাদ আরও সংবাদ

রায়পুরে পীর পরিবারের জমি জোরপূর্বক দখলের পাঁয়তারা করে অপপ্রচার করছে প্রতিবেশি

সংবাদপ্রকাশ ও প্রাণনাশের হুমকির প্রতিবাদে রায়পুরে ভূমি জরিপকারকের সংবাদ সম্মেলন

রায়পুরে গৃহবধূ নিখোঁজ, মায়ের জিডি

রায়পুরে ব্যবসায়ী নেতার বিরুদ্ধে মামলা’ প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন

রায়পুর মৎস্য প্রজনন কেন্দ্রের গুদামে ব্যবসা নিয়ে তদন্ত শুরু

রায়পুরে যুবলীগ নেতা মিরাজ হত্যাকান্ড, ৩৭ আসামি খালাস

লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোর বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রনালয়ে অনলাইন নিউজপোর্টাল প্রকাশনার নিবন্ধনের জন্য আবেদনকৃত, তারিখ: 9/12/2015  
 All Rights Reserved : Lakshmipur24 ©2012-2022
Chief Mentor: Rafiqul Islam Montu, Editor & Publisher: Sana Ullah Sanu.
Muktijudda Market (3rd Floor), ChakBazar, Lakshmipur, Bangladesh.
Ph:+8801794 822222, WhatsApp , email: news@lakshmipur24.com